উল্লাপাড়ায় কৃষকের পাট চাষে আগ্রহ বাড়ছে


নাজমুল হোসেন, সিরাজগঞ্জ প্রকাশের সময় : জুলাই ১০, ২০২৪, ৩:১৪ অপরাহ্ন /
উল্লাপাড়ায় কৃষকের পাট চাষে আগ্রহ বাড়ছে

সোনালি আঁশ খ্যাত ফসল পাটের মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ায় সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার কৃষকেরা সোনালি আঁশের স্বপ্ন দেখছেন। অল্প খরচে কম সময়ে বেশি লাভের আশায় কৃষকদের পাট চাষে আগ্রহ বেড়েছে। গত ৩ বছর যাবৎ পাটের দাম ভালো পাওয়ায় কৃষক পাট চাষ করে লাভবান হচ্ছেন।

উপজেলার ১৩টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় বিভিন্ন গ্রাম জমিতে লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও ব্যাপকভাবে সোনালী আঁশের আবাদ হয়েছে।

উপজেলা  কৃষি অফিস জানায়, দেশী ১২০ হেক্টর, তোষা ৫৭০ হেক্টর, কেনাফ ৮৬৫ হেক্টর ও মেস্তা জাতীয় পাট আবাদ হয়েছে ১৫ হেক্টর জমিতে।

উপজেলার পূর্নিমাগাঁতী, পঞ্চক্রোশী, দুর্গানগর,সলপ, হাটিকুমরুল, রড়হর ইউনিয়নের বোয়ালিয়া, পূর্বদেলুয়া, ব্রম্মকপালিয়াসহ বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, মাঠে মাঠে চোখ জুড়ানো সবুজের সমারোহ। চারিদিকে শুধু পাটক্ষেত। বাতাসে দুলছে পাটের কচি ডগা।

বড়হর ইউনিয়নের পাগলা গ্রামের কৃষক এস এম নাসির উদ্দিন বলেন, এ বছর ৩ বিঘা জমিতে পাট চাষ করেছি। প্রতি বিঘা জমিতে পাট চাষ বাবদ বীজ, সার,কীটনাশক, পরিচর্যা ও আনুষঙ্গিক খরচসহ রোদে শুকিয়ে ঘরে তোলা পর্যন্ত খরচ হয় ১৩-১৪ হাজার টাকা। বিঘায় পাট উৎপাদন হয় প্রায় ১০ মণ। প্রতি বিঘায় ১৬ হাজার টাকা লাভ হয়।

কৃষি অফিসার সুবর্ণা ইয়াসমীন সুমী বলেন, ২০২২-২৩ অর্থবছরের পাটের আবাদ হয়েছিল ১৬২০ হেক্টর। ২০২৩-২৪ অর্থবছরে অর্জন হয়েছে ১৬৫০ হেক্টর। খরিপ-১ মৌসুমে ২৯০ জন চাষীকে পাটের প্রণোদনা দেওয়া হয়েছে। বাজার মূল্য অধিক হওয়ায় পাট চাষে কৃষকদের আগ্রহ বাড়ছে।