কুমিল্লায় হারবাল চিকিৎসার নামে শফিকের প্রতারণা


কুমিল্লা প্রতিনিধি প্রকাশের সময় : জুলাই ৬, ২০২৪, ৪:২৩ অপরাহ্ন /
কুমিল্লায় হারবাল চিকিৎসার নামে শফিকের প্রতারণা

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে হারবাল চিকিৎসার নামে সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে হেকিম শফিকুর রহমান নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। তিনি উপজেলার আদ্রা উত্তরপাড়ার বাসিন্দা।

জানা যায়, হেকিম শফিক একসময় ট্রেনে ট্রেনে বিভিন্ন ধরনের লতাপাতা দিয়ে তৈরি বড়ি বিক্রি করতেন। বর্তমানে নারী ও পুরুষের গোপন রোগের চিকিৎসক দাবি করে নিজ বাড়িতে চেম্বার খুলে বসেন তিনি। সাধারণ মানুষ নানা রোগের চিকিৎসা নিতে ছুটে আসেন তার চেম্বারে।  কিন্তু চিকিৎসার নামে অপচিকিৎসায় অর্থ ও যৌন শক্তি হারিয়ে প্রতারণার শিকার হচ্ছেন তারা।

সরেজমিনে দেখা যায়, চেম্বারে ঝুলানো রয়েছে নিজেকে উচ্চ চিকিৎসক দাবি করা সার্টিফিকেট। সার্টিফিকেটটি ২০১২ সালে ইস্যুকৃত। চেম্বারে রয়েছে বিভিন্ন যৌনউত্তেজক হারবাল ঔষধ ও মেয়াদবিহীন ট্যাবলেট-ক্যাপসুল।

চিকিৎসা নিয়ে প্রতারণার শিকার মোহনা আক্তার, আয়শা খাতুন, রবিউল হোসেন ও তানভীর হোসেন বলেন, অনিয়মিত পিরিয়ড, সাদাস্রাব ও যৌন রোগের চিকিৎসা নিয়ে কোনো ফায়দা পায়নি। মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেওয়া হয়েছে তাদের কাছ থেকে। বিষয়টি প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন ভুক্তভোগীরা।

স্থানীয়রা জানান, একসময় ট্রেনে লতাপাতার বড়ি বিক্রি করা কথিত হেকিম শফিক বর্তমানে বাড়ির পাশে ফার্মেসি দিয়ে যৌন উত্তেজক সিরাপসহ বিভিন্ন ঔষধ বিক্রি করে মোটা অঙ্কের টাকা হাতাচ্ছেন।

অভিযুক্ত হেকিম শফিক জানান, তিনি দীর্ঘদিন ধরে হেকিমি চিকিৎসা দিয়ে আসছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা বিষয়ক কর্মকর্তা ডাক্তার দেব দাস বলেন, এমন অপচিকিৎসার ব্যাপারে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।