মেজর (অবঃ) সিনহা হত্যা মামলায় অভিযোগ গঠন


নিজস্ব প্রতিবেদক, অধিকার কণ্ঠ প্রকাশের সময় : জুন ২৭, ২০২১, ১:১৩ অপরাহ্ন / ৩৫০
মেজর (অবঃ) সিনহা হত্যা মামলায় অভিযোগ গঠন

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলায় কারান্তরীণ টেকনাফ থানার সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ ১০ আসামির জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে ১৫ আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেছেন আদালত।

এর মধ্য দিয়ে এ মামলার আনুষ্ঠানিক বিচারকার্য শুরু হলো।

রবিবার (২৭ জুন) কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাইলের আদালত চার্জগঠনের আদেশ দেন।

আগামী ২৬, ২৭ ও ২৮ জুলাই সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য করেছেন আদালত।

অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা হত্যা মামলার এজাহারে সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ২ নম্বর এবং সাবেক এসআই নন্দ

দুলাল রক্ষিত ৩ নম্বর আসামি।

গতবছর ৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর এপিবিএন চেকপোস্টে

পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান।

নিহত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান এর বোন শারমিন শাহরিয়ার ফেরদৌস বাদী হয়ে এ ঘটনায় ৫ আগস্ট বাহারছড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র সাবেক ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক লিয়াকত আলী এবং টেকনাফ থানার সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ পুলিশের ৯ সদস্যকে আসামি করে মামলা করেন।

আদালত মামলাটির তদন্তভার দেন র‌্যাবকে।

৬ আগস্ট ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ ৭ পুলিশ সদস্য আদালতে আত্মসমর্পণ করলে আদালত তাদের জেল-হাজতে পাঠান।

পরে শামলাপুর চেকপোস্টে দায়িত্ব পালনকারী আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) তিন সদস্য এবং সিনহা হত্যার

ঘটনায় পুলিশের দায়ের করা টেকনাফ থানার মামলার সাক্ষী স্থানীয় তিন জন বাসিন্দাকে আসামি দেখিয়ে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত আসামিদের মধ্যে সাবেক ওসি প্রদীপ ও কনস্টেবল রুবেল শর্মা ছাড়া অপর ১২ আসামি আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

এ হত্যা মামলায় গত ১৩ ডিসেম্বর তদন্তকারী কর্মকর্তা র‍্যাবের জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ খায়রুল ইসলাম ওসি প্রদীপসহ ১৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট জমা দেন।
এতে টেকনাফ থানার সাবেক দুই পুলিশ কনস্টেবলকে নতুন করে আসামি করা হয়।
তারা হচ্ছেন- কনস্টেবল সাগর দেব ও কনস্টেবল রুবেল শর্মা। পরে র‌্যাব কনস্টেবল রুবেল শর্মাকে গ্রেফতার করলেও কনস্টেবল সাগর দেব এখনও পলাতক আছেন।