1. admin@odhikarkantho.com : admin :
আসন্ন বাজেটে এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ দাবি - odhikarkantho
বুধবার, ১৬ জুন ২০২১, ১০:৫৬ অপরাহ্ন

আসন্ন বাজেটে এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ দাবি

মোঃ হাসান উল্লাহ
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ২৪ মে, ২০২১
  • ৪৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

শিক্ষা মানুষের মৌলিক অধিকার। এ মৌলিক অধিকার শতভাগ নিশ্চিত করা রাষ্ট্রের দায়িত্ব। এদেশের বেশির ভাগ মানুষ দারিদ্র সীমার নিচে বসবাস করে।

অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থানের সংস্থানের পর ছেলে মেয়ের শিক্ষার ব্যয় নির্বাহে এই খেটে খাওয়া মানুষ গুলো কতটুকু সামর্থ্যবান তা সহজে

অনুমেয়।

দেশে শিক্ষাখাত ৯৫% এর বেশি বেসরকারি। এ প্রতিষ্ঠানগুলোতে কর্মরত শিক্ষকরা বেতন ভাতা বাবদ সরকারি প্রাপ্ত অনুদান

দিয়ে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিচ্ছে।

এসব প্রতিষ্ঠান সরকারি নীতিমালা ও শিক্ষা মন্ত্রানালয়ের নিয়ম অনুসারে পরিচালিত হয়।

শিক্ষার মান উন্নয়নে সরকার এ নীতিমালা পরিবর্তন করে যা দেশের জন্য মঙ্গলজনক।

কিন্তু আশার প্রতিফলন ঘটে না এসব প্রতিষ্ঠানে সরকারি নিয়মে নিয়োগ প্রাপ্ত শিক্ষকদের।

১৭ বছর ধরে ২৫% ইদ বোনাসে নিরানন্দে ইদ কাঁটায় এই মহান পেশার মানুষ গুলোর পরিবার।

এক হাজার টাকা বাড়িভাড়া, ৫০০ টাকা চিকিৎসা ভাতা তার উপর মাসিক মূল বেতনের ১০% কর্তন যেন মরার ওপর খাঁড়ার ঘা।

যে জাতি যত বেশি শিক্ষিত, সে জাতি তত বেশি উন্নত। আজ এই শিক্ষার কারিগররা ভালো নেই।

শিক্ষকদের জন্য সকল আর্থিক সুযোগ সুবিধা প্রদান রাষ্ট্রের জন্য ব্যয় নয় বরং সভ্য, মেধাবী, সৃজনশীল জাতির তৈরির বিনিয়োগ ক্ষেত্র।

বিশ্ব বাজারে দ্রব্যমূল্য উর্ধগতি, বাড়িভাড়া বৃদ্ধির ফলে সরকারের প্রদত্ত বেতন বাবদ অনুদানের অংশ শিক্ষকদের জীবন ধারনের

জন্য যথেষ্ট নয়। একজন ক্ষুধার্ত মানুষ শিক্ষার মান উন্নয়নে কতটুকু ভূমিকা রাখতে পারে?

আজ মনে হয় কবি কাজী কাদের নেওয়াজের শিক্ষা গুরুর মর্যাদা কবিতায় শিক্ষকের মর্যাদা প্রতিষ্ঠায় বাদশাহ ভুমিকা আমরা

ভুলে গেছি। বঙ্গবন্ধুর শিক্ষাদর্শন, করতে হবে জাতীয়করণ এ স্লোগানে মূখরিত আজ বেসরকারি শিক্ষক সমাজ।

স্বাধীনতার পর যুদ্ধ বিদ্ধস্ত জাতিকে ঢেলে সাজানোর জন্য একযোগে শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করণ, তাঁরই সুযোগ্য কন্যার হাতে

নতুন করে ২৬ হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং প্রতি উপজেলায় একটি করে কলেজ ও স্কুল জাতীয়করণের মত বিপ্লব কেউ

দেখাতে পারিনি। এ যেন শক্ত হাতে দৃঢ় ও মজবুত ভিত্তি।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আকুল আবেদন, মুজিববর্যের অনন্য স্বীকার্য হিসেবে মৌলিক অধিকার শিক্ষাকে নাগরিকের

দৌড়গোড়ায় পৌঁছে দেওয়ার জন্য আসন্ন বাজেটে জাতীয়করনের বরাদ্দ রাখা।

তা না হলে এ বৈশ্বিক মহামারিতে শিক্ষা ব্যয় নির্বাহের অসামর্থের কারণে ঝরে পড়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে যা দেশের জন্য

অশনি সংকেত বলে আমি মনে করি।

দেশ উন্নত হচ্ছে ,সময়ে সাথে এগিয়ে যাচ্ছে দেশের অর্থনীতি। নির্মিত হচ্ছে অবকাঠামোসহ মেগা প্রকল্প। চারদিকে উন্নয়নের যে

গতি, সেখানে শিক্ষা বাজেটে সামান্য আন্তরিকতায় পরিবর্তন হয়ে যেতে পারে পুরো শিক্ষা ব্যবস্থা।

মুছে যাবে নিরানন্দে ইদ কাটা পরিবারগুলো ও অভিমানে প্রেসক্লাবের সামনে ইদের নামাজ আদায় করা মানুষগুলোর নিরব

কান্না।

লেখক- প্রভাষক- আল হেলাল আদর্শ ডিগ্রি কলেজ, সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020-2021
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD